২৫শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৪শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

বুরকিনা ফাসোয় সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হামলায় নিহত ৫০

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : সহিংসতায় বিধ্বস্ত পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোর পূর্বাঞ্চলে সশস্ত্র হামলাকারীরা প্রায় ৫০ জনকে হত্যা করেছে। বৃহস্পতিবার (২৬ মে) ওই অঞ্চলের গভর্নর এই তথ্য সামনে এনেছেন বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।

বুরকিনা ফাসোর পূর্ব অঞ্চলের গভর্নর কর্নেল হুবার্ট ইয়ামিওগো বলেছেন, মাদজোয়ারির গ্রামীণ এলাকায় বাসিন্দাদের বিরুদ্ধে গত বুধবার এই হামলার ঘটনা ঘটে। তবে হামলার পেছনে কারা রয়েছে তা তাৎক্ষণিকভাবে স্পষ্ট নয়।

এক বিবৃতিতে ইয়ামিওগো বলেন, নিহতরা পার্শ্ববর্তী দেশ বেনিন ও টোগো সীমান্তের কাছাকাছি পামা অঞ্চলের নিকটবর্তী একটি শহরে ভ্রমণ করছিলেন। একপর্যায়ে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হামলায় তারা প্রাণ হারান।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সাল থেকে সশস্ত্র মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলোর ক্রমবর্ধমান হামলা মোকাবিলায় রীতিমতো সংগ্রাম করছে বুরকিনা ফাসো। সশস্ত্র এসব গোষ্ঠীগুলোর বেশিরভাগই জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়দা এবং আইএস’র সঙ্গে সম্পৃক্ত। এছাড়া গত এক দশকে আফ্রিকার এই দেশটিতে সহিংসতা অনেক বেড়েছে এবং জোরালো হয়েছে। আর এতে প্রতি বছর হাজার হাজার বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন।

এছাড়া সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বুরকিনা ফাসো, নাইজার এবং মালির বিস্তৃত এলাকাজুড়ে জঙ্গিগোষ্ঠী আল কায়েদা এবং ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে সম্পর্কিত জিহাদিদের হামলা বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে পশ্চিম আফ্রিকার সাহেল অঞ্চল থেকে কয়েক মিলিয়ন সাধারণ মানুষ তাদের বাড়ি-ঘর থেকে উচ্ছেদ হয়েছেন। এসব হামলা ও সহিংসতায় নিহত হয়েছেন হাজার হাজার বেসামরিক মানুষ।

রয়টার্স বলছে, গত বুধবার হওয়া সর্বশেষ এই হামলার আগে চলতি মাসে বুরকিনা ফাসোতে আরও দু’টি হামলার ঘটনা ঘটে। এর একটিতে ১৭ জন বেসামরিক নাগরিক এবং অন্যদিতে ১১ সেনাসদস্য নিহত হন।

অবশ্য সন্ত্রাসী ও জঙ্গি হামলার ক্রমবর্ধমান সংখ্যার কারণে ক্ষুব্ধ সেনা কর্মকর্তারা চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে বুরকিনা ফাসোর প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করেন এবং দেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা উন্নত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটিতে সহিংসতার মাত্রা এখনও অনেক বেশি।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com