১৭ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৩রা মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৩ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

মিসর আন্তর্জাতিক বইমেলায় শায়খ অারীফ উদ্দীন মারুফের ৪ বই

পাথেয় রিপোর্ট : মিসর আন্তর্জাতিক বইমেলায় বাংলাদেশী লেখক মাওলানা আরীফ উদ্দীন মারুফের চারটি বই বিক্রি হচ্ছে। বিশ্বের সব ইসলামিক স্কলারদের লেখা গ্রন্থ মিসরের সেই আন্তর্জাতিক বইমেলায় বই শো করে রাখা হয়েছে। সে সাথে বাংলাদেশের রাজধানীর সার্কিট হাউস জামে মসজিদের খতীব মাওলানা মারুফের বইও শোভা পাচ্ছে। এই বাংলাদেশীর বই কিনতেও ভিড় করছে অনেকে। সেখানে সরাসরি উপস্থিত হয়েছেন লেখক নিজেই।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) থেকে মিসরের কায়রোতে শুরু হয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ইসলামিক এ বইমেলা। সকাল ১০টায় মিসরের সংস্কৃতিমন্ত্র ডক্টর ইনাস আব্দুদ্ দায়িম এ মেলার উদ্বোধন করেন।

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকমের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে মিসর থেকে সরাসরি মাওলানা মারুফ জানান, আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহর অশেষ রহমতেই আমার এ সৌভাগ্য অর্জন হয়েছে। এর আগেও আরববিশ্বে আমার ৩টি বই প্রকাশিত হয়। এবার মিশরের প্রাচীন ও বিশ্ববিখ্যাত প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ‘মাকতাবাতুত তাওফিকিয়্যাহ’র আমন্ত্রণেই এখানে এসেছি।

এদিকে মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) মিসরের ডেইলি পত্রিকা আকীদাতিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার অভিভাবক পরিষদ সদস্য ও জামিআ ইকরা বাংলাদেশের রইস মাওলানা আরীফ উদ্দিন মারুফ বলেন, তার চারটি বই এই বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে। মক্কার দারু তইবা প্রকাশনী থেকে ‘ফি লাহজাতিল ওয়াদায়িল আখির’, দারুল হাদিস থেকে ‘রাওয়ায়ে মিন আশআরিস সাহাবাহ’ মাকতাবুত তাওফিকিয়্যা থেকে ‘রিসালাতুল আমনি ওয়াস সালাম’ এবং দারু তইবা থেকেই ‘আলা ইয়া আইনু ইবকি’। মিসরের এ অভিজাত প্রকাশনীগুলোতেই পাওয়া যাচ্ছে তার লিখিত চার বই।

উল্লেখ্য, ৬০ বছরের প্রাচীন মিশরের এই আন্তর্জাতিক বইমেলা। ‘মা’রদুল কাহেরা আদদাওলিলিল কিতাব’ নামে যেটি সারা পৃথিবীতে প্রসিদ্ধ। এই মেলায় বিশ্বের প্রায় ৫৮টি দেশের ৫০০ এর অধিক প্রকাশনী অংশগ্রহণ করেছে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com