২০শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৬ই জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

শপথ নিলেন জার্মানির নতুন চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ইউরোপের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ জার্মানির নেতৃত্ব থেকে ১৬ বছর পর বিদায় নিলেন এঞ্জেলা মার্কেল। জার্মান পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ বুন্দেসটাগ এসপিডি দলের ওলাফ শলৎসকে চ্যান্সেলর নির্বাচিত করেছে। তার শপথ গ্রহণের আনুষ্ঠানিকতাও শেষ হয়েছে।

বুন্ডেসটাগ সকালে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে ভোটদানের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে। শলৎসের চ্যান্সেলর হওয়া নিয়ে কোনো বিতর্কও হয়নি।

বুন্ডেসটাগ প্রেসিডেন্ট ব্যারবেল বাস ভোটের সূচনা করেন। ৭০৭ ভোটের মধ্যে ৩৯৫টি ভোট পান শলৎস। তবে ভোটের হিসাবে দেখা যাচ্ছে ‘ট্রাফিক লাইট কোয়ালিশন’, অর্থাৎ এসপিডি-এফডিপি-গ্রিনের এ জোটের সব সদস্য শলৎসকে ভোট দেননি। তাদের সবার ভোট পেলে শলৎসের ভোট সংখ্যা হওয়ার কথা ৪১৬। মোট ৭৩৬টি ভোটের মধ্যে শলৎসের বিপক্ষে ভোট পড়ে ৩০৩টি, ছয় জন ভোটদানে বিরত ছিলেন।

এক টুইটে শলৎস জানিয়েছেন, দায়িত্ব গ্রহণে বুন্ডেসটাগের প্রেসিডেন্টের আহ্বানে তিনি সম্মত হয়েছেন।

সেপ্টেম্বরের সাধারণ নির্বাচনে শলৎসের মধ্যবামপন্থী এসপিডি সবচেয়ে বড় দল হিসেবে উঠে আসে এবং দু’মাসের দীর্ঘ আলোচনার পর পরিবেশবাদী গ্রিনস ও নব্যউদারপন্থী এফডিপি-র সাথে জোট গঠনের চুক্তি করে।

ক্ষমতা হস্তান্তর কিভাবে হবে?

ভোটের পর শলৎস জার্মান প্রেসিডেন্টের প্রাসাদে যান, সেখানে প্রেসিডেন্ট ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ার তার হাতে চ্যান্সেলর নিয়োগের আনুষ্ঠানিক পত্র তুলে দেন। এরপর শলৎস আবার বুন্ডেসটাগে ফিরে আসেন এবং সেখানে শপথ গ্রহণ করেন।

এরপর নতুন চ্যান্সেলর তার মন্ত্রিসভা ঘোষণা করবেন এবং নতুন মন্ত্রীরাও প্রেসিডেন্টের প্রাসাদে গিয়ে নিয়োগপত্র গ্রহণ করবেন।

নতুন মন্ত্রিসভায় ১৬ জন মন্ত্রী থাকছেন। এর মধ্যে সাতজন আসছেন শলৎসের এসপিডি থেকে, পাঁচজন গ্রিন পার্টি এবং চার জন এফডিপি থেকে। দিনের বিভিন্ন সময়ে মার্কেলের মন্ত্রীরা শলৎসের মন্ত্রীদের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করবেন।

মার্কেলের অধীনে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করা শলৎস তার দায়িত্ব তুলে দেবেন নতুন অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনারের হাতে৷

ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ বুধবার নতুন জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎসকে জানিয়েছেন, ‘ইউরোপের ভবিষ্যৎ গঠনে দু’দেশ একসাথে কাজ করবে। শলৎসকে স্বাগত জানিয়ে লেখা এক টুইটে মাক্রোঁ বলেন, ‘আমরা ফরাসিদের জন্য, জার্মানদের জন্য, ইউরোপীয়দের জন্য, একসাথে পরবর্তী অধ্যায় লিখবো।’

বিদায়ী চ্যান্সেলর মার্কেলকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন মাক্রোঁ। বলেছেন, ‘ইতিহাসের পাঠ কখনোই ভুলব না। আমাদের জন্য, আমাদের সাথে নিয়ে ইউরোপকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য অনেক কিছু করার আছে।’

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডের লাইয়েন বলেছেন, তিনি শলৎসের সাথে কাজ করতে উন্মুখ। উরসুলা ফন ডের লাইয়েন নিজে ম্যার্কেলের সিডিইউ-এর একজন সদস্য। এক টুইটে তিনি বলেন, ‘আমি আপনার শুভসূচনা কামনা করছি এবং একটি শক্তিশালী ইউরোপের জন্য আরো আস্থাপূর্ণ সহযোগিতার জন্য অপেক্ষা করছি।’

সূত্র : ডয়চে ভেলে

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com