শিক্ষামন্ত্রী নিজেই প্রতিহত হয়ে যাবেন : মুফতি ফয়জুল করীম

শিক্ষামন্ত্রী নিজেই প্রতিহত হয়ে যাবেন : মুফতি ফয়জুল করীম

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম বলেছেন, পাঠ্যবই নিয়ে আন্দোলনকারীদের প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। আমাদের প্রতিহত করতে গিয়ে তিনি নিজেই প্রতিহত হয়ে যাবেন।

শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) জুমার নামাজের পরে রাজধানীর বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ডেনমার্ক ও সুইডেনে পবিত্র কোরআনে অগ্নিসংযোগ এবং পাঠ্যপুস্তকে সাম্প্রদায়িক উসকানি, তথ্য ও ইতিহাস বিকৃতি, ধর্ম বিরোধী মতবাদের অনুপ্রবেশ, বিজাতীয় সংস্কৃতির আধিপত্য ও ইসলামকে হেয় করার প্রতিবাদ এবং পাঠ্যপুস্তক সংশোধনের দাবিতে এ বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

ফয়জুল করীম বলেন, শিক্ষা সিলেবাসের অসঙ্গতি, ত্রুটি-বিচ্যুতি নিয়ে আমরা ধারাবাহিকভাবে দীর্ঘদিন যাবত আন্দোলন করে আসছি। আমাদের এ ধারাবাহিক কার্যক্রমকে শিক্ষামন্ত্রী ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করে মিথ্যাশ্রয়ী সাব্যস্ত করার চেষ্টা করেছিলেন। এখন শিক্ষামন্ত্রীই মিথ্যুক প্রমাণিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, ২০২৩ এর মাধ্যমিক স্তরের পাঠ্যপুস্তকে জনগণের বোধ-বিশ্বাস, সংস্কৃতি ও জাতীয় স্বার্থকে উপেক্ষা করে সাম্প্রদায়িক উসকানি, তথ্য ও ইতিহাস বিকৃতি, বিতর্কিত ও অবৈজ্ঞানিক মানব সৃষ্টিতত্ত্ব অনুপ্রবেশ, ট্রান্সজেন্ডার, পৌত্তলিক ও ব্রাহ্মণ্যবাদী সংস্কৃতির আধিপত্য, ইসলামকে ভিনদেশি সাব্যস্ত করা এবং প্লেজারিজমের মত নিন্দনীয় কাজের আশ্রয় নেওয়া হয়েছে; যা জাতি হিসাবে আমাদের জন্য উদ্বেগ ও হতাশার।

তিনি বলেন, কারো ধর্মীয় বিশ্বাসকে অপমান করার অধিকার কারও নেই। শিক্ষা সিলেবাসে আমূল পরিবর্তন আনা হয়েছে। ইসলামী শিক্ষাকে সিলেবাস থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। ডারউইনের নাস্তিক্যবাদী শিক্ষা শেখানো হচ্ছে কোমলমতি শিশুদের। ছাত্রছাত্রীদের নাস্তিক বানানোর গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। এমন শিক্ষা কমিশন গঠন করুন যেখানে শিক্ষিত আলেম থাকবে। আলেমদের সমন্বয় শিক্ষা কমিশন গঠন করতে হবে। এই বিতর্কিত সিলেবাস চালানোর চেষ্টা করা হলে আগুন জ্বালানো হবে।

তিনি আরও বলেন, মহাগ্রন্থ আল-কুরআনে অগ্নিসংযোগ করে তাবৎ আল্লাহদ্রোহী শক্তিগুলো বিশ্বব্যাপী অশান্তির দাবানল জ্বালিয়ে দিয়েছে। ডেনমার্কের কুরআন পোড়ানো হয়নি বরং আমাদের অন্তরে আগুন জ্বালানো হয়েছে। সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে এবং ডেনমার্কে পবিত্র কুরআন পোড়ানোর এ ঘটনা সারাবিশ্বের মুসলমানদের মনে আঘাত দিয়েছে।

সমাবেশে নেতারা বলেন, পবিত্র কুরআনের অবমাননা এ দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা মেনে নেবে না। অবিলম্বে এ দেশ থেকে সুইডেন ও ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূতদের নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হোক৷ তা হলে প্রয়োজনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ গণআন্দোলনের ডাক দেবে। ইসলামকে হেয় করতে যদি সারা দুনিয়ার বিরোধী শক্তি এক হয় তবে সারা দুনিয়ার ইসলামী শক্তিও এক হবে।

সংগঠনের সহকারী মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান, যুগ্ম মহাসচিব মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা মুহাম্মাদ ইমতিয়াজ আলম, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, ঢাকা মহানগর উত্তর সেক্রেটারি মাওলানা আরিফুল ইসলাম, দক্ষিণ সেক্রেটারি ডা. শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *