শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সঠিক পথেই বাংলাদেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সঠিক পথেই বাংলাদেশ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের ‘সোনার বাংলা’ বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সঠিক পথেই রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের অ্যাশ সেন্টার আয়োজিত ‘বাংলাদেশ: অ্যাচিভমেন্টস, চ্যালেঞ্জস অ্যান্ড ওয়ে ফরওয়ার্ড’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় প্রধান বক্তা হিসেবে তিনি এ মন্তব্য করেন।

স্থানীয় সময় সোমবার (২০ মার্চ) এ গোলটেবিল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে কেনেডি স্কুলের ফ্যাকাল্টি সদস্য, গবেষক ও স্নাতকোত্তর ছাত্ররা ছাড়াও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানটি নীতিনির্ধারক, শিক্ষাবিদ ও বিশেষজ্ঞদের জন্য অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্য, বর্তমানে যেসব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছে এবং দেশের অঙ্গীকার নিয়ে আলোচনা করার একটি সুযোগ করে দেয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী দারিদ্র্য বিমোচন, নারীর ক্ষমতায়ন, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, ডিজিটাল রূপান্তরের পাশাপাশি বিদ্যুৎ ও পরিবহন অবকাঠামো উন্নয়নসহ অর্থনৈতিক ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব অগ্রগতির ওপর জোর দেন।

ড. মোমেন একটি স্থিতিস্থাপক অর্থনীতি, একটি সংযোগকারী হাব এবং একটি বিনিয়োগ গন্তব্যে বিকশিত হওয়ার পথে বাংলাদেশের সাফল্য তুলে ধরেন। উন্নয়নের লক্ষ্যে দেশের রোডম্যাপ তুলে ধরে মন্ত্রী ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ রূপকল্প বাস্তবায়নে প্রযুক্তি, উদ্ভাবন ও গবেষণার ভূমিকার ওপর জোর দেন। তিনি এ অঞ্চল ও এর বাইরে বাংলাদেশের ভূ-রাজনৈতিক বাস্তবতা নিয়েও আলোচনা করেন।

মোমেন আঞ্চলিক প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের ভূমিকা ও অবদানের ওপর আলোকপাত করেন। বিশেষ করে প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সহযোগিতা ও অংশীদারত্বের গুরুত্ব তুলে ধরেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ তার পররাষ্ট্র নীতির উদ্দেশ্য ‘সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়’ অনুযায়ী এ অঞ্চলে ও এর বাইরে শান্তি, সম্প্রীতি ও স্থিতিশীলতা উন্নয়নে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

আলোচনায় রোহিঙ্গা সংকট, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রতিকূলতা, মহামারি পরিণতির পাশাপাশি বৈশ্বিক রাজনৈতিক, আর্থিক, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তা অনিশ্চয়তার কারণে সৃষ্ট চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার ওপরও আলোকপাত করা হয়।

অ্যাশ সেন্টারের ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের ডায়েউ প্রফেসর এবং হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের রাজাওয়ালি ফাউন্ডেশন ইনস্টিটিউট ফর এশিয়ার ডিরেক্টর অ্যান্থনি সাইচ স্বাগত বক্তব্য রাখেন। সমাপনী বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *