৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ , ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ১৬ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি

সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় যৌথভাবে স্থান পেয়েছে সিঙ্গাপুর ও যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক। ইকোনমিস্ট ইনটেলিজেন্স ইউনিটের (ইআইইউ) বার্ষিক জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এই প্রথমবারের মতো নিউইয়র্ক বিশ্বের ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় শীর্ষ স্থানে নাম লিখিয়েছে। গতবার এ স্থানে ছিল ইসরায়েলের শহর তেল আবিব। তবে এবারের তালিকায় তেল আবিবের অবস্থান তৃতীয়। এ ছাড়া চতুর্থ অবস্থানে চীনের আধা স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল হংকং শহর।

ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় নিউইয়র্কের নাম শীর্ষ স্থানে উঠে আসার কারণগুলোর একটি যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ মূল্যস্ফীতি। এ কারণে ব্যয়বহুল ১০টি শহরের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের আরও দুটি শহর—লস অ্যাঞ্জেলেস ও সান ফ্রান্সিসকোও রয়েছে।

এই দুটির মধ্যে হংকংয়ের সঙ্গে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে লস অ্যাঞ্জেলেস; সপ্তম অবস্থানে সান ফ্রান্সিসকো। আর সুইজারল্যান্ডের জুরিখ ষষ্ঠ অবস্থানে ও সপ্তম অবস্থানে জেনেভা। ফ্রান্সের প্যারিস নবম অবস্থানে রয়েছে। আর অস্ট্রেলিয়ার সিডনি ও ডেনমার্কের কোপেনহেগেন রয়েছে দশম স্থানে।

ইআইইউয়ের জরিপ অনুযায়ী, চলতি বছর বিশ্বের বড় শহরগুলোয় বসবাসের খরচ গড়ে ৮ দশমিক ১ শতাংশ বেড়েছে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও করোনাভাইরাসের মহামারির প্রভাব পড়েছে পণ্য সরবরাহের ওপর। এতে বাজারে পণ্যের সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে পণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় খরচ বেড়েছে।

বৈশ্বিক এই জরিপ অনুসারে, তুরস্কের ইস্তাম্বুলে মূল্যস্ফীতির হার বেশি। শহরটিতে মূল্যস্ফীতি ৮৬ শতাংশ। আর্জেন্টিনার বুয়েন্স এইরেসে মূল্যস্ফীতি ৬৪ শতাংশ এবং ইরানের তেহরানে ৫৭ শতাংশ।

ব্যয়বহুল শহরের তালিকায় এবার রাশিয়ার মস্কো ও সেন্ট পিটার্সবার্গ শহরের অবস্থান যথাক্রমে ৩৭ ও ৭৩ নম্বরে। আগে শহর দুটির অবস্থান ছিল ৮৮ ও ৭০। ইউক্রেনে রুশ অভিযানকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার ওপর আরোপিত পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে শহর দুটিতে খরচ বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

ইআইইউয়ের জরিপটির অংশ হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৭২টি শহরের ২০০-এর বেশি পণ্য ও সেবা দামের মধ্যে তুলনা করা হয়েছে। চলতি বছর ইউক্রেনের কিয়েভকে জরিপের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

আর সবচেয়ে কম ব্যয়বহুল ১০ শহর হলো কলম্বো, বেঙ্গালুরু, আলজিয়ার্স, চেন্নাই, আহমেদাবাদ, আলমাতি, করাচি, তাসখন্দ, তিউনিস, তেহরান, ত্রিপোলি ও দামেস্ক।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com