২৭শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৬ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

সুন্দরবনে দুই মাস মাছ ধরা নিষিদ্ধ

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : সুন্দরবনের নদী ও খালে আগামী দুই মাস সকল প্রকার মাছ ধরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে বনবিভাগ। বনবিভাগ জানায়, জুলাই ও আগস্ট মাস মৎস্য প্রজনন মৌসুম। এ সময়ে সাধারণত সকল মাছে ডিম ছাড়ে। তাই প্রতি বছরের ন্যায় চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত দুই মাস সুন্দরবনের সকল প্রকার মৎস্য আহরণ বন্ধ থাকবে।

মৎস্যসম্পদ রক্ষায় ইন্টিগ্রেটেড রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান (আইআরএমপি) এর সুপারিশ অনুযায়ী ২০১৯ সালে এ সিদ্ধান্ত নেয় বনবিভাগ। তারপর থেকে প্রতি বছর সুন্দরবনের বিভিন্ন নদ-নদীতে নিরাপদে মৎস্য প্রজনন ঘটে। সুন্দরবনের ৬ লাখ ১ হাজার সাতশ হেক্টর বনভূমির মধ্যে সাড়ে চারশত নদী ও খাল রয়েছে।

এর মধ্যে অভয়ারণ্য এলাকাসহ ১৮টি খাল এবং ২৫ ফুটের কম প্রশস্ত খালে সারাবছর মাছ ধরা নিষিদ্ধ। তবে প্রজননের জন্য জুলাই ও আগস্ট মাস বনের সকল খালে মাছ ধরা বন্ধ করা হয়।

অপরদিকে, মাছ ধরা বন্ধের ঘোষণায় সুন্দরবনের ওপর নির্ভশীল পেশাজীবীরা হতাশা প্রকাশ করেছেন।

শরণখোলা উপজেলার খুড়িয়াখালী গ্রামের জেলে হাবিব হাওলাদার বলেন, আমরা সুন্দরবনে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে থাকি। করোনাকালীন সময়ে হঠাৎ করে মাছ ধরা বন্ধ করে দিলে আমাদের না খেয়ে থাকতে হবে।

শরণখোলার মৎস্য ব্যবসায়ী জালাল মোল্লা বলেন, প্রায় দুই হাজার পারমিটধারী জেলে মাছ ধরে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করে। তাদের সাথে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার মানুষ জড়িত রয়েছে। আমরা জেলেদের লাখ লাখ টাকা দাদন দিয়েছি। করোনা পরিস্থিতিতে বাইরেও কোনো কাজকর্ম নেই। দুর্যোগকালে দুই মাস মাছ ধরা বন্ধ থাকলে জেলে পরিবারর না খেয়ে থাকতে হবে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগীয় কর্মকর্তা (ডিএফও) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, মৎস্যসম্পদ রক্ষায় প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও দুই মাস সুন্দরবনের সকল প্রকার মাছ ধরা বন্ধ থাকবে। এছাড়া জেলেদের দুর্ভোগের বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com