২৬শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ৩০শে রবিউস সানি, ১৪৪৪ হিজরি

৫২ ঘণ্টা পর মুক্ত মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : প্রায় ৫২ ঘণ্টা পর অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্ত হয়েছেন টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য (ভিসি) প্রফেসর ড. মো. ফরহাদ হোসেন।

শুক্রবার (৪ নভেম্বর) দুপুরে অবরুদ্ধ অবস্থা থেকে মুক্তির পর ক্যাম্পাসের মসজিদে নামাজ পড়তে যান তিনি।

এর আগে শুক্রবার সকালে শিক্ষার্থীরা জননেতা আব্দুল মান্নান হলের সামনে এসে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরে সেই মিছিল ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এরপরে শিক্ষার্থীরা ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. ফরহাদ হোসেনকে মুক্ত করতে তার কার্যালয়ে প্রবেশ করে। এ সময় শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানান উপাচার্য। পরে বেলা সোয়া ১টার দিকে সেখান থেকে মুক্ত হয়ে ক্যাম্পাসের মসজিদে নামাজ পড়তে যান তিনি।

আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ৩০ অক্টোবর তৃতীয় শ্রেণি কর্মচারী সমিতির পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে স্মারকলিপি দেওয়া হয়। এতে কর্মচারীরা ১৪ দফা দাবি তুলে ধরেন। কিন্তু স্মারকলিপিতে থাকা দাবি উপেক্ষা করে বুধবার কেয়ারটেকার পদের নিয়োগে বোর্ড নিযুক্ত করায় তারা ভাইস-চ্যান্সেলরের কার্যালয় তালাবদ্ধ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর, ট্রেজারার, অভ্যন্তরীণ রিজেন্ট বোর্ড সদস্য, ডিন, বিভাগীয় চেয়ারম্যান, সিনিয়র শিক্ষকরা আন্দোলনকারীদের সঙ্গে দফায় দফায় আলোচনা করেও সমস্যার সমাধান করতে পারেননি। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০ দিকে উপাচার্যকে মুক্ত করতে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ক্যাপাসে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা ছাড়া তিনি বের হতে রাজি হননি।

আন্দোলনকারীরা বলেন, বারবার তাদের দাবির কথা জানিয়েও দাবি আদায় না হওয়ায় ভাইস চ্যান্সেলরের কার্যালয় তালা ঝুলিয়েছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ফরহাদ হোসেন বলেন, তাদের দাবি অযৌক্তিক। আগের উপাচার্য থাকার সময় পদবী ছাড়াই তারা এডহকে নিয়োগ পেয়েছিল। ইউজিসি কর্তৃপক্ষকে বলে ২২টি পদের জন্য নিয়োগের ব্যবস্থা করে তাদের জানানো হলেও তারা তাদের অবস্থানে অনড় ছিলো। তবে এখন কার্যালয়ে তালা না থাকায় এবং তাদের কারো উপস্থিতি না থাকায় এখন বের হয়েছি।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com