৩০শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৯শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

উদ্যোক্তা সম্মাননা পেলেন রকমারি কাণ্ডারী মাহমুদুল হাসান

উদ্যোক্তা সম্মাননা পেলেন রকমারি কাণ্ডারী মাহমুদুল হাসান

পাথেয় রিপোর্ট : পছন্দের বই পাঠকের হাতে পৌঁছে দেওয়ার জন্য উদ্যোক্তা সম্মাননা পেয়েছেন রকমারি ডটকমের স্বত্বাধিকারী মাহমুদুল হাসান সোহাগ। তিনি বণিক বার্তা-বিআইডিএস উদ্যোক্তা সম্মাননা-২০১৯-এর জন্য নির্বাচিত উদ্যোক্তা সম্মাননা পেলেন।

পছন্দের বই দেশের যেকোনো প্রান্তের পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে ২০১২ সালে যাত্রা করে রকমারি ডটকম। বই কেনার এই অনলাইন প্লাটফর্মে কাজ করছেন ১৩০ জন কর্মী। সারা দেশে আড়াই লাখের বেশি পাঠক রয়েছে রকমারি ডটকমের। সম্মাননাপ্রাপ্তির প্রতিক্রিয়ায় মাহমুদুল হাসান সোহাগ বলেন, ৬ হাজার টাকা পুঁজি নিয়ে আমার উদ্যোক্তা জীবনের শুরু। ১৯ বছরের চেষ্টায় রকমারি ডটকমসহ আরো সাতটি প্রতিষ্ঠান আমি গড়ে তুলেছি। আজকে রকমারি ডটকম উদ্যোক্তা হিসেবে সম্মাননা পেল। এটা আমার কাছে অনেক বড় একটা পাওয়া। আমাকে সামনে এগিয়ে যেতে এ ধরনের সম্মাননা সব সময় উৎসাহিত করবে।

এ সম্মানা পাওয়ায় রকমারি ডটকমের স্বত্বাধিকারী মাহমুদুল হাসান সোহাগকে অভিনন্দন জানিয়েছেন পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম সম্পাদক ও বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান ও ঐতিহাসিক শোলাকিয়া গ্র্যান্ড ইমাম শাইখুল হাদিস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। তিনি বলেন, রকমারির স্বত্বাধিকারী মাহমুদুল হাসান সততানির্ভর সফল একজন উদ্যোক্তা। আমি তার পুরস্কার লাভে খুব খুশি হয়েছি। প্রকৃত মেধাবীদের মূল্যায়ন হওয়া উচিত। মাহমুদুল হাসানের মতো মেধবাীরা পুরস্কৃত হলে দেশই লাভবান হবে। বাংলাদেশ আরও সম্মুখে এগিয়ে যাবে।

এ ছাড়া সম্মাননাপ্রাপ্ত আরেক উদ্যোক্তা হলেন আজিজু রিসাইক্লিং অ্যান্ড ই-ওয়েস্ট কোম্পানি লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী আবুল কালাম আজাদ। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার দেলপাড়ায় ২০১২ সালে যাত্রা করে প্রতিষ্ঠানটি। স্থায়ী ও চুক্তিভিত্তিক মিলিয়ে এখানে কাজের সুযোগ হয়েছে ৩০০ জনের। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক টার্নওভার প্রায় ৩৬ কোটি টাকা।

সম্মাননাপ্রাপ্তির অনুভূতি জানাতে গিয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, আমি সিঙ্গাপুরে প্রায় ২০ বছর ধরে ই-বর্জ্য প্রক্রিয়াজাতের কাজ করেছি। এরপর আমার মনে হলো, আমি দেশে গিয়ে এই কাজটি করব। বাংলাদেশে ই-বর্জ্য প্রক্রিয়াজাত করছি পাঁচ বছর ধরে। আমি চাই পরিবেশ দূষণ রোধে কাজ করতে। বণিক বার্তা ও বিআইডিএসের এ সম্মাননাকে পুঁজি করে আমি আরো সামনে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছি।

সম্মাননার জন্য নির্বাচিত অন্যজন হলেন মুনলাইট পেট ফ্লেকস অ্যান্ড পেট স্ট্রিপ ইন্ডাস্ট্রির স্বত্বাধিকারী হাবিবুর রহমান জুয়েল। ফেলনা বোতল নিয়ে ২০১১ সালে কারবার শুরু করেন তিনি। ২০১২ সালে চীন ও ভারতে উৎপাদিত বোতলকুচি রফতানি শুরু করে এ প্রতিষ্ঠান। বর্তমানে চীনে ২৪০ টন স্ট্রিপ রফতানি করছে মুনলাইট পেট ফ্লেকস অ্যান্ড পেট স্ট্রিপ ইন্ডাস্ট্রি। অনুভূতি জানাতে গিয়ে হাবিবুর রহমান জুয়েল বলেন, বণিক বার্তা-বিআইডিএস আজকে আমাকে উদ্যোক্তা হিসেবে সম্মানিত করল। এটা আমার জন্য অনেক বড় একটা পাওয়া। আমাকে ও আমার ব্যবসাকে সামনে এগিয়ে নিতে, আরো উদ্যমী হতে অনুপ্রাণিত করবে এ পুরস্কার।

হোটেল সোনারগাঁওয়ে মঙ্গলবার পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান (এনবিআর) মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়ার কাছ থেকে এ সম্মাননা নেন তিন উদ্যোক্তা—রকমারি ডটকমের স্বত্বাধিকারী মাহমুদুল হাসান, আজিজু রিসাইক্লিং অ্যান্ড ই-ওয়েস্ট কোম্পানি লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী আবুল কালাম আজাদ ও মুনলাইট পেট ফ্লেকস অ্যান্ড পেট স্ট্রিপ ইন্ডাস্ট্রির স্বত্বাধিকারী হাবিবুর রহমান জুয়েল।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com