৬ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২২শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৬শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

দুদিনেই ইনিংস হারে কুপোকাত বাংলাদেশ!

দুদিনেই ইনিংস হারে কুপোকাত বাংলাদেশ শিবির!

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বিদেশের বাড়িতে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা টিকতেই পারছে না ক্রিজে। উইকেট বিলাতে বিলাতে শেষ পর্যন্ত দুইদিনেই ইনিংস পরাজয়ের শিকার হতে হলো আবার দলটিকে।

আগের দিনই কিছু অনুমেয় ছিল, ওয়েলিংটনে সিরিজের টেস্টেও বাংলাদেশের পক্ষে সম্ভব হবে না হার এড়ানো। তবে সবার সেই ভাবনার চেয়ে আরো বাজে পারফরম্যান্স দেখিয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম টেস্টের মতো সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টেও ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে। তাই সিরিজ হাতছাড়া হয়ে গেছে মাহমুদউল্লাহর দলের।

ওয়েলিংটনে মঙ্গলবার ম্যাচের পঞ্চম দিনে প্রথম সেশনেই দ্বিতীয় ইনিংস গুটিয়ে নেয় বাংলাদেশ। তাই ইনিংস ও ১২ রানে হেরেছে তারা। তিন ম্যাচ সিরিজে নিউজিল্যান্ড তাই এগিয়ে গেছে ২-০-তে।

ম্যাচের প্রথম দুদিন বৃষ্টিতে ভেসে গিয়েছিল। পরের তিন দিনের মধ্যে দুদিনের কিছুটা বেশি সময় খেলা হয়েছে, আর এ সময়ের মধ্যেই হেরে গেছে বাংলাদেশ।

ম্যাচে বাংলাদেশ আগের দিনের তিন উইকেটে ৮০ রান নিয়ে ব্যাট করতে নেমে নিল ওয়েগনার ও ট্রেন্ট বোল্টের বিধ্বংসী বোলিং আক্রমণের সামনে ২০৯ রানেই ইনিংস গুটিয়ে নেয়।

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর হাফ সেঞ্চুরি (৬৭), মোহাম্মদ মিঠুন (৪৭), সাদমান ইসলাম (২৯) ও সৌম্য সরকার (২৮) ছোট কয়েকটি ইনিংস খেললেও দলের হার এড়ানোর জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। তাই আবারও ইনিংস হারের লজ্জা পেতে হয়েছে।

এর আগে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ মাত্র ২১১ রান গড়েছিল। জবাবে ৪৩২ রান নিয়ে ইনিংস ঘোষণা করে নিউজিল্যান্ড। রস টেইলর, হেনরি নিকোলাস ও কেন উইলিয়ামসনের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়েই এই বিশাল সংগ্রহ গড়েছিল স্বাগতিকরা। টেইলর ব্যক্তিগত তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি করে দলকে এগিয়ে যাওয়ার পথ দেখিয়েছেন। মুস্তাফিজের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরার আগে খেলেন ২০০ রানের চমৎকার একটি ইনিংস। আর উইলিয়ামসন ১০৫ বলে ৭৪ করে আউট হয়েছেন। নিকোলাস ১২৯ বলে ১০৭ রান করেন।

অবশ্য ম্যাচে দারুণ শুরু করেছিলেন বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সাদমান ইসলাম। দুজনে ৭৫ রানের জুটি গড়েন। দ্বিতীয় উইকেটেও ভালো করেছিলেন তামিম ও মুমিনুল। এর পরই যে ধস শুরু হয়, তা আর কেউ থামাতে পারেনি।

অবশ্য তামিম এদিনও ভালো খেলেছেন। তিনি ১১৪ বলে ৭৪ রানের চমৎকার একটি ইনিংস খেলেন। পরে সাদমান ২৭ ও লিটন দাসের ৩৩ রান ছাড়া অন্যরা ছিলেন আসা-যাওয়ার দলে।

নিল ওয়েগনার ও ট্রেন্ট বোল্টের বোলিং তোপেই বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ের বেহাল অবস্থা হয়েছে। ওয়েগনার ১৩ ওভারে মাত্র ২৮ রান দিয়ে চার উইকেট তুলে নেন। আর বোল্ট ১১ ওভারে ৩৮ রানে তিন উইকেট পান।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com