২৮শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৭শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

ধৈর্য আমাদের দুর্বলতা নয়, প্রয়োজনে ফাঁসির মঞ্চ তৈরিতে আমরা প্রস্তুত : মাওলানা মাদানী

  • প্রতি বছর ১৫ই মার্চ ‘আন্তর্জাতিক ইসলামোফোবিয়া দিবস’ পালনের ঘোষণা

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : ভারতজুড়ে ক্রমবর্ধমান সাম্প্রদায়িকতা ও ইসলামোফোবিয়া প্রতিরোধে ১ হাজারটি সম্প্রীতি মঞ্চ গঠনের ঘোষণা দিলেন জানেশীনে ফিদায়ে মিল্লাত, বর্তমান বিশ্বের অন্যতম অধ্যাত্মিক রাহবার, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি, আওলাদে রাসূল হযরত মাওলানা সাইয়্যিদ মাহমুদ আসআদ মাদানী।

শনিবার (২৮ মে) সকালে উত্তর প্রদেশের দেওবন্দে উসমান নগর ঈদগাহ ময়দানে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের ২ হাজার সদস্য ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের কেন্দ্রীয় পরিচালনা কমিটির সম্মেলনে তিনি এ ঘোষণা দেন।

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি মাওলানা মাহমুদ আসআদ মাদানীর সভাপতিত্বে এই সম্মেলনে যোগদান করেন জমিয়তের অপর অংশের সভাপতি, আমীরুল হিন্দ হযরত মাওলানা সাইয়্যিদ আরশাদ মাদানী।

সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে বর্তমানে ভারতে ক্রমবর্ধমান ইসলামবিদ্বেষকে কীভাবে প্রতিরোধ করা যায় তা নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হয়। মুসলিম ও অমুসলিম সম্প্রদায়ের সম্মিলনে সম্প্রীতি মূলক ফোরাম গঠনের প্রস্তাবও এই সম্মেলনে পাশ হয়।

সভাপতির ভাষণে মাওলানা মাহমুদ মাদানী বলেন, আমরা মুসলমানরা দুর্বল হতে পারি, কিন্তু এর মানে এই নয় যে, আমরা মাথা নত করে সব মেনে নেবো।

তিনি বলেন, আমরা সব বিষয়ে আপস করতে পারি, কিন্তু আমাদের ঈমান ও আকীদা প্রসঙ্গে কোনো আপস হতে পারে না। আমাদের ঈমান আমাদের শিক্ষা দেয়, কোনো পরিস্থিতিতেই হতাশ হওয়া যাবে না। এই সাম্প্রদায়িক শক্তির একটি অ্যাকশন প্ল্যান আছে, তারা আমাদের কাছ থেকে এর হীন প্রতিক্রিয়া চায়, কিন্তু আমরা তাদের এই পরিকল্পনার ফাঁদে পা দিয়ে এর অংশ হতে পারি না।

মাওলানা মাদানী বলেন, সাম্প্রদায়িক লোকেরা ভারতে সংখ্যাগরিষ্ঠ নয়, সংখ্যায় তারা নগণ্য। বরং আমরাই এই দেশে আদর্শিকভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠের কাতারে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও বাস্তবতা হলো এই যে, যারা ঘৃণা ও সাম্প্রদায়িকতা ছড়াচ্ছে, এরা দেশের দুশমন, এরা দেশদ্রোহী; এটা ভালোভাবে জানা থাকার পরও ভারতের অধিকাংশ মানুষ এদের প্রতিরোধে আজ মুখ বুজে আছে।

সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ নির্মূলের দায়িত্ব সরকার ও গণমাধ্যমের উপরই বেশি বর্তায় মন্তব্য করে তিনি বলেন, আমাদের পূর্বপুরুষেরা এই দেশের জন্য মহান ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাই আমরা সাম্প্রদায়িক শক্তিকে ভারতের মর্যাদা নিয়ে খেলতামাশার সুযোগ দিতে পারি না।

সাম্প্রদায়িকতার উত্তর কখনও সাম্প্রদায়িকতা হতে পারে না

তবে মুসলমানদের চরমপন্থা অবলম্বন ও তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়ে মাওলানা মাদানী বলেন, আগুন দিয়ে আগুন নেভানো যায় না। তাই সাম্প্রদায়িকতার উত্তর কখনও সাম্প্রদায়িকতা হতে পারে না।

তিনি বলেন, আজ তারা আমাদের নিজেদের দেশেই আমাদেরকে পরদেশী বানানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। এই লোকেরা জাতীয় ঐক্যের কথা বলে এবং অখণ্ড ভারত গড়ার ঘোষণা দেয়, অথচ মুসলমানদের নিজেদের দেশ ভারতে চলাফেরা করা কঠিন করে তুলেছে এরাই। আজ আমরা ধৈর্য ধারণ করছি, কিন্তু প্রয়োজনে আমরা ফাঁসির মঞ্চ প্রস্তুত করবো (ইনশাআল্লাহ)। তবে তা আমরা কারও মুখের কথায় করবো না, বরং আমাদের দল এই সিদ্ধান্ত নেবে। কিন্তু যখন এই সিদ্ধান্ত হবে, তখন আমরা এক কদমও পিছু হটবো না।

শাইখুল ইসলাম হযরত মাওলানা হুসাইন আহমদ মাদানীর সাহসিকতার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তিনি ব্রিটিশ আদালতে কাফনের কাপড় পরে উপস্থিত হয়েছিলেন। আমরা তাঁরই উত্তরসূরি, সেই একই দলের অনুসারী আমরা।

এ প্রসঙ্গে তিনি মুক্তিযুদ্ধ মৈত্রীপদক প্রাপ্ত বাংলাদেশের বিদেশী বন্ধু, ফিদায়ে মিল্লাত সাইয়্যিদ আসআদ মাদানীর বিভিন্ন বৈপ্লবিক কর্মকাণ্ড প্রসঙ্গে আলোচনা করেন।

দারুল উলূম দেওবন্দের মুহতামিম হযরত মাওলানা আবুল কাসিম নোমানী জমিয়তের কার্যকরী পদক্ষেপের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, জমিয়তের সম্প্রীতি মঞ্চ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ মূলত ভারতবর্ষের প্রকৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ একটি উদ্যোগ।

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা হাকিমুদ্দিন কাসেমীর সঞ্চালনায় এই সম্মেলনে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পক্ষ থেকে প্রতি বছর ১৫ মার্চ ‘আন্তর্জাতিক  ইসলামোফোবিয়া’ দিবস পালিত হবে বলেও ঘোষণা করা হয়।

অনুবাদঃ আদিল মাহমুদ ও আব্দুর রহমান রাশেদ

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com