প্রকল্প নেওয়ার জন্য নেবেন না : প্রধানমন্ত্রী

প্রকল্প নেওয়ার জন্য নেবেন না : প্রধানমন্ত্রী

রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস-২০২৪’ উদযাপন অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এখন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা গ্রাম থেকে শুরু না করলে, এগুলো একটা সমস্যা হবে। শহরগুলোতে বিরাট সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে, বর্জ্যগুলো কোথায় ফেলবে, কী করবে না করবে? সেগুলো থেকে কিন্তু বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যায়। রিসাইকেল করা যায়। বর্জ্য ব্যবস্থাপনা আমাদের এখন থেকে নিতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইতিমধ্যে রাস্তাঘাট ব্যাপক হারে করা হয়েছে। পায়ে চলার রাস্তাগুলোতে প্রথমে মাটি ঠিক করতে হয়। তারপর ইট বিছানো, এরপর পাকা করে দেওয়া, এখন অনেক এলাকায় বাকি আছে, আমার কিন্তু শুরু করেছি।

তিনি বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরকে জনগণের কাছে জবাবদিহি করতে হয়। সরকারি কর্মচারীরা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চাকরি করে, তাদের জবাবদিহি নেই। যারা জনগণের প্রতিনিধি জবাবদিহি আপনাদের, আমাদের। জনগণ সেবা পাচ্ছে কিনা আমাদের দেখতে হবে। না দেখলে চলবে না। দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মচারীদের দায়িত্ব আছে। তারাও যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করবেন।

সরকারপ্রধান বলেন, আমরা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিয়েছি, বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে, কারণ বিদ্যুৎ উৎপাদনে অনেক খরচ হয়। এত বেশি খরচ হয়, আমরা কিন্তু কম টাকা নেই। যারা বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে তারাই লাভবান হয়। এখন থেকে আর সে ব্যবস্থা হবে না। একটা নির্দিষ্ট ইউনিট পর্যন্ত ছাড় দেওয়া আছে। যারা নিম্নবিত্ত, এর উপরে যারা বেশি ব্যবহার করবে তার বিদ্যুতের মূল্য তত বেশি বৃদ্ধি পাবে। সেভাবে আমরা করতে চাই।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আবুল খায়ের আব্দুল্লাহ, শরীয়তপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ছাবেদুর রহমান খোকা সিকদার, বাঘা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাড. মো. লায়েব উদ্দিন লাভলু, পঞ্চগড় পৌরসভা মেয়র জাকিয়া খাতুন ও জগদল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুমায়ুন রশিদ লাভলু।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *