২৪শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২২শে শাওয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

রাজধানীতে হবে ৩০০ টিকাদান কেন্দ্র : স্বাস্হ্যমন্ত্রী

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, রাজধানীতে করোনাভাইরাসের টিকা দিতে ৩০০টি কেন্দ্র করা হবে।

সোমবার (১৮ জানুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির উদ্যোগে আয়োজিত ‘মিট দ্য রিপোর্টার্স’ অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আশা করছি আগামী ২৫-২৬ জানুয়ারির মধ্যে ভারত থেকে ভ্যাকসিনের প্রথম লট চলে আসবে। আর এ টিকা দিতে রাজধানী ঢাকায় ৩০০টি কেন্দ্র করা হবে।

তিনি জানান, রাজধানীর সরকারি হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ৩০০টি টিকাদান কেন্দ্র করা হবে। এখান থেকে টিকা দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, সরকার ভ্যাকসিনেশন প্রোগ্রামটা সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে চায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নীতিমালা অনুসারে যারা ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন, আগে তাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। সেখানে বয়স্কদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

তবে যাদের বয়স ১৮ বছরের নীচে তাদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে না বলেও উল্লেখ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

দেশের সব সাংবাদিকদের যথাসময়ে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে উল্লেখ করে জাহিদ মালেক বলেন, ভ্যাকসিন যথাযথভাবে দেওয়ার জন্য আইসিটি বিভাগ একটি অ্যাপ তৈরি করেছে। জনগণকে সেখানে নিবন্ধনের মাধ্যমে বিনামূল্যে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।

তিনি বলেন, আমরা অন্যদের (অন্যান্য দেশের) তুলনায় স্বল্প সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য গত নভেম্বরে (ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের সাথে) একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলাম। আমরা এখন কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছি। আমরা রাশিয়া, চীন এবং অন্যান্য দেশের সাথেও ভ্যাকসিনের জন্য আলোচনা করছি।

জনগণকে যথাযথভাবে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য ইতমধ্যে ৪ হাজার ২০০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কারা আগে ভ্যাকসিন পাবে, এ জন্য আমরা একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন জাতীয় কমিটি তৈরি করেছিলাম। প্রত্যেক সাংবাদিক ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার কারণে তারাও আগে ভ্যাকসিন পাবেন।

ডিআরইউ সভাপতি মোরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমানের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে ডিআরইউ’র অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

/এএ

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com