২৯শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ , ২৮শে জিলকদ, ১৪৪৩ হিজরি

৫ দিনের সফরে আমিরাত যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫ দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে আজ সোমবার বিকেলে সংযুক্ত আরব আমিরাত সফরে যাচ্ছেন। মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ এ দেশটির উপ-রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী ও দুবাইয়ের শাসক মোহাম্মদ বিন রশিদ আল মাকতুমের আমন্ত্রণে এ সফরে যাচ্ছেন বাংলাদেশের সরকার প্রধান।

জানা গেছে, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১৩০১ ভিভিআইপি ফ্লাইটে আজ সোমবার, ৭ মার্চ বিকেল ৪টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে রওনা হবেন শেখ হাসিনা। স্থানীয় সময় রাত পৌনে ১০টায় আবুধাবি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছাবেন প্রধানমন্ত্রী।

দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং আমিরাত সরকারের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদল বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাবেন। এ সময় স্ট্যাটিক গার্ড অব অনার দেওয়া হবে। বিমানবন্দরের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তার সফরকালীন আবাসস্থলে যাবেন প্রধানমন্ত্রী।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল রোববার, ৬ মার্চ প্রধানমন্ত্রীর আমিরাত সফর উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। এ সময় তিনি জানান, এই সফরে দেশটির সঙ্গে ৪টি সমঝোতা স্মারক, এমওইউ সই করতে চায় বাংলাদেশ। এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর আমিরাত সফরে দেশটির সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বৃদ্ধি, নবায়নযোগ্য জ্বালানি, সরাসরি শিপিং লাইন চালু, আইসিটি ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সে সহযোগিতা বৃদ্ধি এবং জলবায়ু পরিবর্তনে টেকসই উন্নয়নের বিষয়ে গুরুত্ব দেবে ঢাকা।

মধ্যপ্রাচ্যের অন্যতম তেলসমৃদ্ধ দেশটি সফর প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে বাংলাদেশের আমদানি-রপ্তানির পরিমাণ প্রায় ২ বিলিয়ন ডলার। অবশ্য এখনো দেড় বিলিয়ন ডলারের মতো বাণিজ্য ঘাটতি রয়েছে। এর প্রধান কারণ হলো দেশটি থেকে আমরা শুধু জ্বালানি তেল আমদানি করি।

ড. মোমেন বলেন, আসন্ন সফরে রপ্তানির পরিমাণ আরো কীভাবে বাড়ানো যায়, তার ওপর গুরুত্বারোপ করা হবে। এ জন্য বাংলাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে সরাসরি শিপিং সার্ভিস চালুর বিষয় নিয়ে আলোচনা করা হবে।

এ সময় সাংবাদিকরা জানতে চান যে, প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে আমিরাতের সঙ্গে কয়টি সমঝোতা স্মারক সই হবে? এর জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সফরে দেশটির সঙ্গে আমরা ৪টির মতো এমওইউ করব। অবশ্য কোন কোন বিষয়ে এমওইউ সই করা হবে, তা স্পষ্ট করেননি এ কে আব্দুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, দুই দেশের মধ্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানি, জলবায়ু পরিবর্তনসহ টেকসই উন্নয়নের জন্য সহযোগিতার ক্ষেত্র বাড়ানোর বিষয় নিয়ে আমরা আলোচনা করব। একই সঙ্গে আইসিটি ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের সহযোগিতার মাধ্যমে উভয় পক্ষের মধ্যে অভিজ্ঞতা, জ্ঞান ও তথ্য বিনিময়ের নতুন নতুন অধ্যায়ের সূচনা করতে ইচ্ছুক আমরা।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২২ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com