৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৫শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

গণফোরামে বিএনপির সন্দেহ চরমে

গণফোরাম নিয়ে বিএনপির সন্দেহ

পাথেয় রিপোর্ট : আরবিতে একটা প্রবাদ আছে, কুল্লু সাইয়িন ইলা আসলিহি। প্রত্যেক জিনিসই তার মূলের দিকে ফিরে আসে। গণফোরাম গঠিত হয়েছিল আওয়ামীলীগ ও বাম দলগুলো থেকে আসা কিছু লোকের সমাগমে। সুলতান মনসুর যেমন বলেছেন, আমি বঙ্গবন্ধুর সৈনিক ছিলাম, আছি এবং থাকবো। আর এ জায়গাটাতেই সন্দেহের দানা বেঁধেছে গণফোরামের বিএনপির। নাটকীয়তার সর্বশেষ মোকাব্বিরও নিলেন শপথ। জীবনের প্রথম এই সংসদ সদস্য হওয়ার গৌরব থেকে কেন তিনি বঞ্চিত হবেন।

ওদিকে বিএনপি নির্বাচনের কারচুপির অভিযোগ করে এখনো কার্যত সংসদের বাইরে থাকার সিদ্ধান্তেই রয়েছে অটল। এই নিয়েই জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সংসারে আগুন। এই সহজে নিভবে বলে আশা করতে পারছেন না রাজনীতি বিশ্লেষকগণ।

এদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্তকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে প্রথমে গণফোরামের সুলতান মুহাম্মদ মনসুর এরপর দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও সিলেট-২ আসন থেকে নির্বাচিত মোকাব্বির খান সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়েছেন। দু’জনের ক্ষেত্রেই গণফোরাম থেকে বলা হয়েছে তারা দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নিয়েছেন। পরপর এমন দুটি ঘটনাকে ভালো চোখে দেখছে না জোটের অন্যতম দল বিএনপি। দলের নীতি নির্ধারকরা এতে যেমন অস্বস্তিতে রয়েছেন তেমনি তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরাও গণফোরামকে দেখছেন সন্দেহের চোখে।

একাদশতম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফল মেনে না নেওয়া জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সিদ্ধান্ত ছিলো জোট থেকে নির্বাচিত কেউই সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন না। কিন্তু এরই মধ্যে গণফোরাম থেকে নির্বাচিত দু’জনই শপথ নিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে চাপে পড়েছেন বিএনপির নীতি নির্ধারকরা। বিশেষ করে বিএনপির বর্তমান পরিস্থিতিতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের মুখোমুখি হচ্ছেন দলটির নীতি নির্ধারকরা। এরইমধ্যে গণফোরামের দু’জন সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেওয়ায় সেই চাপ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। তৃণমূল নেতারা এরই মধ্যে প্রশ্ন তুলছেন, তাহলে গণফোরামের সঙ্গে জোট করে লাভ কি হলো?
বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিএনপির তৃনমূল আগে থেকেই গণফোরামের সঙ্গে জোট বাধা নিয়ে নেতিবাচক অবস্থানে ছিলো। মোকাব্বির খান শপথ নেওয়ার পর বিএনপির ভেতরে জোট ভাঙার আওয়াজ উঠেছে। তারা এও বলছেন যে, গণফোরাম থেকে নির্বাচিত দু’জন যেভাবে শপথ নিয়েছেন এতে ষড়যন্ত্র আছে। গণফোরাম প্রকাশ্যে তাদের (শপথ নেওয়া দু’জন) বিরুদ্ধে অবস্থান নিলেও ভেতরে ভেতরে এই শপথ নেওয়াকে সমর্থন করছেন কি না-সে বিষয় নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তারা।

বিএনপি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির দু’জন নেতা নিজেদের নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, তারা মনে করছেন সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির খানের শপথ নেওয়ার সঙ্গে গণফোরাম ওতপ্রোতভাবে জড়িত। তারাই দু’জনকে শপথ নিতে বলে এখন ‘বহিষ্কার নাটক’ করছেন। গণফোরাম বিএনপির সঙ্গে রাজনীতি করছে। বিএনপি থেকে নির্বাচিত ৬ জন শপথ নিলো না অথচ তারা শপথ নিলো। দলের নেতাকর্মীদের ওপর যে দলের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই, সেই দলের সঙ্গে ভবিষ্যতে আর কতটুকু পথ চলা যাবে তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন ওই দু’জন নেতা।

জানতে চাইলে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেন, ‘তিনি (মোকাব্বির খান) দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে তার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তে শপথ নিয়েছেন। এর সঙ্গে গণফোরামের কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই। তিনি গণফোরামের যে দলীয় প্যাডে শপথ নেওয়ার কথা লিখেছের সেখানে দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কোনো স্বাক্ষর নেই। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা শেষে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com