৫ই আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ২১শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৫শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

ঢালাওভাবে ওয়াজ নিয়ন্ত্রণে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে : ডয়েচে ভেলেকে আল্লামা মাসঊদ

‘ঢালাওভাবে ওয়াজ নিয়ন্ত্রণে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে’  

পাথেয় রিপোর্ট : ঢালাওভাবে ওয়াজ নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে দেশের দ্বীনদরদি মানুষদের মধ্যে একটা নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান ও ঐতিহাসিক শোলাকিয়ার গ্র্যান্ড শাইখুল হাদিস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ। তিনি জার্মান পত্রিকা ডয়চে ভেলেকে বলেন, বাংলাদেশে ওয়াজ মাহফিলের একটি ঐতিহ্য আছে, বিশেষত শীতকালে৷ তাই এটা নিয়ে ঢালাওভাবে কিছু বলা বা করা হলে তাতে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া হতে পারে৷ আমার কথা হলো, কেউ যদি তাঁর ওয়াজে দেশের প্রচলিত আইনবিরোধী কিছু করেন তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ আছে এবং সেটা নেয়া উচিত৷

আয়কর বিষয়ক এক প্রশ্নের জবাবে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, আয়কর আইন সুনির্দিষ্ট আছে। যদি বাংলাদেশে সাংস্কৃতিক কোনো শিল্পীকে করের আওতায় আনার আইন থাকে তাহলে বক্তাদেরও আনা দরকার। আর যদি শিল্পীদের আয়করের কোনো বিষয় নেই তাহলে বক্তাদের ক্ষেত্রেও না হওয়া দরকার।

ওয়াজ মাহফিল মনিটরে ইসলামী চিন্তাবিদদের নিয়ে একটি কাউন্সিল করা যায় কিনা জানতে চাইলে ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ বলেন, বাংলাদেশে আলেমদের কোনো বিষয়ে ঐকমত্য হওয়ার ঘটনা খুবই কম। এতে বলয়ভিত্তিক ভাগ হয়ে যাবে। সুতরাং তাতে লাভ হবে বলে মনে হয় না৷ কারণ বাংলাদেশে মাওলানারা যে যার চিন্তা অনুযায়ী কাজ করেন৷
এদিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ওয়াজ নিয়ে মোট ৬ দফা সুপারিশ করেছে৷ সুপারিশের মধ্যে বিদ্বেষমূলক ওয়াজের কারণে সতর্ক করা ছাড়াও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টকারী ও রাষ্ট্রবিরোধী বক্তব্য যাঁরা দেবেন তাঁদের আইনের আওতায় আনার কথাও বলা হয়েছে৷

ওয়াজে সাম্প্রাদয়িকতা ও জঙ্গিবাদের উসকানিমূলক কিছু বক্তব্যের উদ্ধৃতিও দেয়া হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদনে৷ যেমন, ‘মূর্তি ভাঙা ধর্মীয় কাজ’, ‘রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কাফের’, ‘অমুসলিমদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করলে ঈমান নষ্ট হয়ে যায়’, ‘গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র ধর্মনিরেপক্ষতাবাদ মুশরিকদের কাজ’, ‘শহিদ মিনারে ফুল দেয়া, ফুল দিয়ে নীরবতা পালন করা শিরক’, ‘জাতীয় সংগীত কওমি মাদ্রাসায় চাপিয়ে দেওয়া যাবে না’, ‘আল্লাহর রাস্তা প্রতিষ্ঠায় উত্তম জিহাদ হচ্ছে সশস্ত্র জিহাদ’, ‘আল্লাহ রসূলকে গালি দিলে কোপাতে হবে’, ‘ইসলামের কিরুদ্ধে আইন করলে কোপাতে হবে’, ‘ নারী হলো শষ্য ক্ষেত্র, সেখানে চাষ করতে হবে’ প্রভৃতি৷

ওয়াজিনদের নিবন্ধনের আওতায় আনার একটা চেষ্টা করছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন সচিব কাজী নুরুল ইসলাম । তিনি এই জার্মান পত্রিকাকে জানিয়েছেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি পাওয়ার পর আমরা কাজ শুরু করেছি৷ আমরা আগেই সারাদেশে ওয়াজেরিনদের একটা তালিকা করেছিলাম, সেটা আপডেট করছি৷ এরপর তাঁদের কীভাবে নিবন্ধনের আওতায় আনা যায় তা নিয়ে আমরা কাজ করব৷

আরও খবর পড়ুন

ঢালাওভাবে ওয়াজিনদের নিয়ন্ত্রণ করা উচিত নয় : আল্লামা মাসঊদ

হাদিসচর্চা করে সাহাবাবান্ধন হওয়ার আহ্বান আল্লামা মাসঊদের

তরুণ লেখকদের মধ্যে সৃজনশীলতা আছে : আল্লামা মাসঊদ

সাইয়্যিদ আরশাদ মাদানীকে আল্লামা মাসঊদের অভ্যর্থনা

তাকি উসমানীর গাড়িবহরে হামলার নিন্দা জানালেন আল্লামা মাসঊদ

এখনই রমজানের প্রস্তুতির সময় : আল্লামা মাসঊদ

মেরাজের শিক্ষা— নামাজে আল্লাহকে দেখা : আল্লামা মাসঊদ

কিছু বক্তার লাগাম টানা জরুরি

ওয়াজে নবীজীকে কটূক্তির অভিযোগে আটক সেই বক্তা কারাগারে

ওয়াজ-মাহফিলের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করলো ইসি

 

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২১ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com