২৯শে মে, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ , ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ , ৮ই জিলকদ, ১৪৪৪ হিজরি

বছরে চারবার জিডিপির হিসাব প্রকাশ করবে সরকার

এবার সত্যিকার অর্থেই মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) তথ্য বছরে চারবার প্রকাশ করবে সরকার। তবে তা শুরু হবে ২০২৪ পঞ্জিকা বছর থেকে। কাজটি করবে এ–সংক্রান্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)। বিবিএস সূত্রে গত বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানা গেছে।

বিশ্বের প্রায় সব দেশ জিডিপির হিসাব বছরে ত্রৈমাসিক ভিত্তিতেই প্রকাশ করে থাকে। বাংলাদেশ করে বছরে একবার। প্রকৃত জিডিপির হিসাব কমতির দিকে থাকলে তা প্রকাশ করতে দেড় থেকে দুই বছর লাগিয়ে দেওয়ার উদাহরণও রয়েছে দেশে। আবার যে কাজ বিবিএস করার কথা, তা অনেক সময় অর্থ মন্ত্রণালয়ও করে বসে।

বিবিএসের কর্মকর্তারা এখন অবশ্য জানান, তাঁরা অনিয়ম দূর করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) বলার পরই জোর পাওয়া যাচ্ছে। বাংলাদেশের জন্য ৪৭০ কোটি মার্কিন ডলারের ঋণ প্রস্তাব গত ৩০ জানুয়ারি অনুমোদন করার পর দেখা যায়, আইএমএফের দেওয়া বিভিন্ন শর্তের মধ্যে বছরে চারবার জিডিপির হিসাব প্রকাশ করার বিষয়টিও রয়েছে।

বিবিএস সূত্র বলছে, কাজটি তারা শুরু করেছে। অবশ্য প্রস্তুতি নিতেই চলতি পঞ্জিকা বছরটি লেগে যাবে। ২০২৪ সালের জানুয়ারি থেকে প্রতি তিন মাস পরপর এভাবে বছরে চারবার জিডিপির হিসাব প্রকাশ করতে তারা পুরোদমে সমর্থ হবে।

বিবিএসের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাইলে সংস্থাটির একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা জানান, বিবিএস জিডিপির তথ্য তৈরি ও প্রকাশ করে এটা ঠিক। কিন্তু তথ্যগুলো আনতে হয় সরকারের অন্য দপ্তর থেকে। তাদের দেরির কারণেই কাজটি করতে দেরি হয়ে যায়। অন্য দপ্তরগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বাংলাদেশ ব্যাংক, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি), বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, শিল্প মন্ত্রণালয় ইত্যাদি।

দেড় বছর আগেই বছরে চারবার জিডিপির হিসাব প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। শুধু তা–ই নয়, তখন আঞ্চলিক জিডিপির হিসাবও প্রকাশ করা হবে বলে জানানো হয়েছিল।

২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বিবিএস আয়োজিত এক কর্মশালায় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছিলেন, ‘তিন মাস পর জিডিপি প্রবৃদ্ধির তথ্য দিতে সরকারপ্রধানের (প্রধানমন্ত্রী) কাছ থেকে অনুমোদন নেওয়া হয়েছে।’

একই অনুষ্ঠানে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম বলেন, ‘কাজটি দেরিতে হলেও করতে যাচ্ছি। তিন মাস পরপর জিডিপির তথ্য পেলে জরুরি পদক্ষেপগুলো নেওয়া সহজ হবে।’

বছরে চারবার জিডিপির তথ্য প্রকাশের বিষয়ে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমের কাছে গতকাল শনিবার জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আইএমএফের বলার আগেই আমরা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সবকিছুর সঙ্গে আইএমএফের শর্তের সম্পর্ক জুড়ে দেওয়া ঠিক নয়। আইএমএফ এখন বলছে, ভালো। আশা করছি, আগামী অর্থবছরের (২০২৩-২৪) প্রথম না হলেও দ্বিতীয় প্রান্তিক থেকে কাজটি আমরা চালু করতে পারব।’

শেয়ার করুন


সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ১৯৮৬ - ২০২৩ মাসিক পাথেয় (রেজিঃ ডি.এ. ৬৭৫) | patheo24.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com