বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার আলোচনা ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার আলোচনা ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত

পাথেয় টোয়েন্টিফোর ডটকম : বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার চেয়ারম্যান, শোলাকিয়া ঈদগাহের গ্র্যান্ড ইমাম, শাইখুল হাদীস আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের উপস্থিতিতে রাজধানীর চৌধুরীপাড়া ইকরা বাংলাদেশ মিলনায়তনে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ঢাকা মহানগরী আয়োজিত আলোচনা ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (৪ জুন) বিকেল ৩টা থেকে শুরু হওয়া এই আলোচনা ও পরামর্শ সভার সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির ঢাকা মহানগরীর সভাপতি মাওলানা দেলওয়ার হোসাইন সাইফী, অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ঢাকা মহানগরীর নির্বাহী সভাপতি মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন, সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগরীর প্রচার সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম।

বর্তমানে অধিকাংশ উলামায়ে কেরাম হক থেকে বঞ্চিত উল্লেখ করে মাওলানা ইব্রাহিম শিলিস্তানি বলেন, উলামায়ে কেরামের মর্যাদা দিন দিন ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। তাদের এই বেহাল দশার কারণ তারা আজ ফাসেকদের অধীনে আছে। আমাদের উলামায়ে কেরাম জামায়াতে ইসলামীসহ বেদআতি দলগুলোর সাথে উঠাবসা করছেন। আর আল্লাহ তাআলা তো বেদাতীদের কোন আমলই কবুল করেন না। তাই উলামায়ে কেরাম এখন হক থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন, নিজেদের মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করছেন।

আকাবিরদের বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকার ইতিহাস তুলে ধরে তিনি বলেন, আমাদের আকাবির ও আসলাফ সর্বদা বাতিলের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলেন। কিন্তু আমরা আজ বাতিলের সাথেই উঠাবসা করছি। তাই এখন প্রশ্ন হয়, আমাদের আকাবিরে আসলাফ ভুল ছিলেন, নাকি আমরা ভুল পথে আছি?

বাংলাদেশের ধর্মীয় অঙ্গনে আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের অবদানের কথা বলতে গিয়ে খুলনা মাদানীনগর মাদরাসার মুহতামিম বলেন, আজকে যারা বাংলাদেশে দ্বীনের খেদমত করছেন এবং সামনে থেকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তাদের বেশিরভাগই আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদের হাতে গড়া ছাত্র, লাজনার সদস্য।

বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার কর্মক্ষেত্র সম্পর্কে আলোচনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, জমিয়তুল উলামার কর্মক্ষেত্র হলো সাধারণ মানুষ। সাধারণ মানুষদেরকে আলেমদের সাথে একত্রিত করাই হলো বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামার লক্ষ্য।

অনুষ্ঠানে ঢাকা ইউনিভার্সিটির শিক্ষক মাওলানা হুসাইনুল বান্না বলেন, আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ আমাদের জন্য রহমত স্বরুপ। তিনি যা বলবেন আমরা তাই করবো ইনশা আল্লাহ।

বাংলাদেশ জমিয়তে উলামার কর্মীদের লক্ষ্য ও উদ্দেেশ্য সম্পর্কে কথা বলেত গিয়ে তিনি বলেন, দেওবন্দ ও দেওবন্দিয়্যাতের চেতনায় নিজেদেরকে গড়াই আমাদের লক্ষ্য।

বর্তমানে কওমী মাদ্রাসার ছাত্রদের চিন্তাগত অবক্ষয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের মাদ্রসাগুলোতে সালাফিয়্যাজমের চেতনা ঢুকে গেছে। আমাদের ছাত্ররা দীর্ঘ আট-দশ বছর আমাদের কাছে পড়ার পরও অন্যদের চিন্তায় প্রভাবিত হচ্ছে, যা দুঃখজনক হলেও সত্যি।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ঢাকা মহানগরীর সহসাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি যারওয়াতুদ্দীন সামনুন জমিয়তের কর্মতৎপরতা মূল্যায়ন করতে গিয়ে বলেন, বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা প্রতিষ্ঠার ৭ বছরেই যেসব কাজ আঞ্জাম দিয়েছে, কোন কোন সংগঠন ৭০ বছরেও তা করতে পারেনি। এরপর তিনি বিগত চার মাসের সাতটি সাফল্যের কথা তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্যে উপস্থিত সকল সদস্য, কর্মী, নেতা ও জনসাধারণকে শুভেচ্ছা ও ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা সাইফুর রহমান শোয়াইব।

আলোচনা ও পরামর্শ সভা অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা ইহতেশামুল হক, মাওলানা মাসরুর আহমদ, মাওলানা ফারুক হোসেন, মাওলানা মুহাম্মাদ উল্লাহ, মাওলানা শফিকুল উসলাম, মাওলানা মাহতাম উদ্দীন নোমান, মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহ, মাওলানা তামিমুল ইসলাম ফরীদী, মাওলানা নুর উদ্দীন জামালী, জনাব এলাহী নেওয়াজ তালুকদার, জনাক মুস্তফা কামাল, জনাব মইনুল ইসলাম, জনাব কায়েস আহমদ প্রমুখ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *